Banks asked to levy minimum LC margin on rice, wheat imports – U.S. Bangla News




Banks asked to levy minimum LC margin on rice, wheat imports

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১০:৩৪
The central bank has asked banks to take a minimum cash advance from importers while opening letters of credit (LCs) for rice and wheat in order to keep their prices at a tolerable level in the domestic market and ensure smooth supply. The advance payment, also known as the cash LC margin, should be kept at the minimum level depending on the bank-client relationship, said the Bangladesh Bank in a notice today. For all latest news, follow The Daily Star's Google News channel. The food crop prices are showing an upward trend owing to the disruption to the global supply chain because of

the negative impacts of the Russia-Ukraine war. As a result, the transport cost of global commodities has gone up, affecting the prices in the local market. "So, it is important to keep the prices of rice and wheat at a tolerable level and ensure a smooth supply," said the BB. The central bank does not set any margin on the import of commodities, and it is usually determined based on the bank-client relationship. Banks can even decide to impose no margins. In July, the BB asked banks to take up to 100 per cent of import payments in advances from businesses while opening

LCs for luxury and non-essential items, in an effort to keep the foreign exchange reserves stable. The reserves fell from $39.60 billion in July to $33.92 billion on December 7. On December 10, the central bank directed banks to take a minimum cash advance from importers while opening LCs for a number of essential commodities in order to keep their prices at a tolerable level during Ramadan. The demand for edible oil, gram, lentil, onion, spices and dates usually goes up during Ramadan. As a result, the prices of the items increase. The prices of key items such as edible oil and sugar have

already surged in Bangladesh for the higher import costs of the raw materials needed to produce the items, the escalated transport and fuel costs, and the energy shortage, driven mostly by the war.
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
কোটা আন্দোলনে রেসিডেন্সিয়াল কলেজ শিক্ষার্থী ফারহান নিহত বাইডেনকে সরে দাঁড়ানোর জন্য চাপ শুমার, পেলোসির সংঘাত ও সহিংসতা কাম্য নয়: চীনা রাষ্ট্রদূত শিক্ষার্থীদের দাবি যৌক্তিক, আলোচনায় সমাধান মিলবে: আরেফিন সিদ্দিক স্বামী অন্য নারীর সঙ্গী, বিচ্ছেদের ঘোষণা দিলেন দুবাইয়ের রাজকুমারী এবার কোটা আন্দোলন নিয়ে সরব মেহজাবীন, যা বললেন মাদারীপুরে ত্রিমুখী সংঘর্ষে লেকের পানিতে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু ২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে পাশে দাঁড়ালেন কলকাতার নায়িকা সোহেল-নিরব-টুকুসহ বিএনপির ৫০০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা ছাত্র আন্দোলনের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জামায়াতের বিএনপির কার্যালয়ে ফের ঝুলছে তালা, সতর্ক অবস্থানে পুলিশ আন্দোলনত শিক্ষার্থীরা মুক্তির সন্তান, স্বপ্নের বিপ্লব গড়ে তুলছে: রিজভী শিক্ষার্থীদের পরিবর্তে আজ মাঠে নেমেছে বিএনপি-জামায়াত: কাদের ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ নিয়ে যা বললেন ওবায়দুল কাদের যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগ সভাপতি ড. সিদ্দিকের বাংলাদেশ গমন : ডা:মাসুদ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আজ সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ দুবাইয়ের রাজকন্যা হয়েও যে কারণে স্বামীকে তালাক দিলেন শেখা মাহরা শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে বেআইনি শক্তি প্রয়োগ করা হয়েছে হানিফ ফ্লাইওভারে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত