হলান্ডের জোড়া গোলে ডর্টমুন্ডের রোমাঞ্চকর জয়

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২:৩০ অপরাহ্ণ
হলান্ডের জোড়া গোলে ডর্টমুন্ডের রোমাঞ্চকর জয়

শুরুতে পিছিয়ে পড়া দলকে পথ দেখালেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দারুণ ছন্দে এগিয়ে চলা আর্লিং হলান্ড। গোল করলেন ও করালেন। রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে সেভিয়াকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালের পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল বরুশিয়া ডর্টমুন্ড।

সেভিয়ায় বুধবার রাতে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ৩-২ গোলে জিতেছে জার্মান দলটি। সুসোর গোলে সেভিয়া এগিয়ে যাওয়ার পর সমতা টানেন মাহমুদ দাহুদ। হলান্ডের জোড়া গোলের পর ব্যবধান কমান লুক ডি ইয়ং।

ঘরের মাঠে সেভিয়ার শুরুটা হয় দারুণ। সপ্তম মিনিটেই এগিয়ে যায় তারা। ডি-বক্সের বাইরে থেকে সুসোর শটে বল ডর্টমুন্ডের ডিফেন্ডার ম্যাটস হামেলসের পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

জবাব দিতে বেশি সময় লাগেনি সফরকারীদের। ১৯তম মিনিটে অসাধারণ এক গোলে সমতা ফেরান দাহুদ। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

সতীর্থের গোলে অবদান রাখা হলান্ড ২৭তম মিনিটে দারুণ নৈপুণ্যে এগিয়ে নেন দলকে। প্রায় মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে এগিয়ে ডি-বক্সের মাথায় জেডন স্যানচোকে পাস দিয়ে দ্রুত ভেতরে ঢুকে পড়েন তিনি। এরপর ফিরতি পাস পেয়ে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন নরওয়ের এই উঠতি ফরোয়ার্ড।

বিরতির আগে ব্যবধান বাড়ান হলান্ড। মার্কো রয়েসের পাস ছয় গজ বক্সের সামনে পেয়ে বাঁ পায়ের শটে জাল খুঁজে নেন তিনি।

ডর্টমুন্ডের জার্সিতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সাত ম্যাচে এটি হলান্ডের দশম গোল। এই প্রতিযোগিতায় কোনো এক দলের হয়ে যা দ্রুততম ১০ গোলের রেকর্ড। আগের রেকর্ড ছিল বায়ার্ন মিউনিখের সাবেক ফরোয়ার্ড রয় মাকায়ের। তার লেগেছিল ১০ ম্যাচ।

সব মিলিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১৩ ম্যাচে হলান্ডের গোল হলো ১৮টি।

বিরতির পর কিছুটা ছন্দ হারায় ডর্টমুন্ড। ৭৩তম মিনিটে ভাগ্যের ফেরে গোল পায়নি সেভিয়া। অস্কার রদ্রিগেসের ফ্রি-কিকে বল পোস্টে লাগে। নির্ধারিত সময়ের ছয় মিনিট বাকি থাকতে ব্যবধান কমান ডি ইয়ং।

ডর্টমুন্ডের মাঠে আগামী ৯ মার্চ ফিরতি লেগে আবারও মুখোমুখি হবে দল দুটি।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।