শাকিবকে দায়িত্ববান নাগরিক হিসেবে অভিহিত করল ইউনিসেফ

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২৯ এপ্রিল ২০২১, ৯:৫৩ অপরাহ্ণ
শাকিবকে দায়িত্ববান নাগরিক হিসেবে অভিহিত করল ইউনিসেফ

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের চিত্রনায়ক শাকিব খানকে একজন দায়িত্ববান নাগরিক হিসেবে উল্লেখ করেছে জাতিসংঘের শিশুদের উন্নতি ও নিরাপত্তাসংক্রান্ত বিশেষ সংস্থা।

করোনা প্রতিরোধে মূলত ভ্যাকসিন গ্রহণে উৎসাহ দেওয়ার জন্য সংস্থাটি তারকাদের নিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে।

ইউনিসেফ বলছে ‘বাংলাদেশের সর্বপ্রিয় অভিনেতা এবং একজন সম্মানিত প্রযোজক শাকিব খান-এর আরো একটি পরিচয় আছে- তিনি প্রকৃত অর্থে একজন দায়িত্ববান নাগরিক। সঠিক সময়ে করোনাভাইরাস টিকা নিয়ে তিনি নিজের ও নিজ কমিউনিটির সুরক্ষা নিশ্চিত করেছেন।’

ফেসবুক পেইজে আরো বলা হয়েছে, এই বিশ্ব টিকাদান সপ্তাহে ইউনিসেফের ভ্যাকসিন চ্যাম্পিয়ন হয়ে তিনি আপনাকেও আহবান জানাচ্ছেন: সঠিক সময়ে আপনার এবং আপনার সন্তানের টিকাদান নিশ্চিত করুন। এই গুরুত্বপূর্ণ বার্তাটি মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্যে আপনার জন্য রইলো আমাদের অশেষ কৃতজ্ঞতা!

করোনাভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার শেষ দিন ছিল এপ্রিলের ৫ তারিখ। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী ৫ এপ্রিল ছিল করোনার টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার শেষ দিন। পরে এই প্রথম ডোজ আবার কবে দেওয়া হবে, সে ব্যাপারে স্পষ্টভাবে এখনো কিছু বলা হয়নি। শেষ দিনে করোনার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন চলচ্চিত্র তারকা শাকিব খান।

পাবনায় মাস খানেক ধরে ‘অন্তরাত্মা’ নামে একটি ছবির শুটিং করেছেন ঢালিউড তারকা শাকিব খান। ছবিটির পরিচালক ওয়াজেদ আলী সুমন। এতে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন ভারতের কলকাতার অভিনয়শিল্পী দর্শনা বণিক। ছবিতে আরও অভিনয় করছেন অরুণা বিশ্বাস, ঝুনা চৌধুরী, এস এম মহসীন, শাহেদ শরীফ খান, মারুফ প্রমুখ।

মাসখানেক শুটিং শেষে ঢাকা এসেই টিকা নেন শাকিব খান।

টিকা গ্রহণের পরপর শাকিব খান বলেন, ‘টিকা নেওয়া এত সহজ হবে, ভাবতেও পারিনি। হাসপাতালের সবাই বেশ আন্তরিকভাবে টিকা দিয়েছেন। বলা যেতে পারে, সুন্দর পরিবেশে শান্তিমতো করোনার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছি।’ দেশের সবাইকে করোনার টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শাকিব খান বলেন, ‘টিকায় ভয়ের কিছু নেই, চিন্তারও কোনো কারণ নেই। নিজেরা করোনার টিকা নিন এবং আশপাশের সবাইকে করোনার টিকা নিতে উদ্বুদ্ধ করুন।’

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।