মেহেরপুরে দুই ভাইকে হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড – U.S. Bangla News




মেহেরপুরে দুই ভাইকে হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ২ এপ্রিল, ২০২৩ | ৪:১৯
মেহেরপুরে রফিকুল ইসলাম ও আবুজেল নামের দুই ভাইকে হত্যা মামলায় ৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রোববার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক রিপতি কুমার বিশ্বাস এ রায় দেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো-গাংনী উপজেলার কাজিপুর গ্রামের কিয়ামতের ছেলে হালিম (৩৫), আছের উদ্দীনের ছেলে আতিয়ার (৪০), নজির আলীর ছেলে শরিফুল ইসলাম (৪০), মৃত দবীর উদ্দীনের ছেলে শরিফ (৪০) ও ফরিদ (৪৫), আব্দুল জলিলের ছেলে জালাল উদ্দীন (৪৩), আফেল উদ্দীনের ছেলে আজিজুল (৩৬), মুনছারের ছেলে মনি (২৫), নজির উদ্দীনের ছেলে দবির উদ্দীন (৩২)। এর মধ্যে জালাল উদ্দীন পলাতক রয়েছে। বাকিরা রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বাকি ৫ জন আরিফ, রাজিব, আলমেস, হারুন ও

ফারুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদেরকে বেকুসর খালাস দেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১২ সালের ৫ জুন কাজীপুর গ্রামের একটি মাঠ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ফেনসিডিলি উদ্ধার করে বিজিবি। রফিকুল ইসলাম ও আবুজেলের নামে এসব ফেনডিসিল ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে রফিকুল ইসলামকে ডেকে নিয়ে মারধর করে অভিযুক্তরা। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে রফিকুলকে উদ্ধার করে। ১৫ জুন রাত ১০ টার দিকে বিষয়টি মীমাংসার জন্য ওই দুই ভাইকে ডেকে নিয়ে যায় অভিযুক্তরা। তারপর থেকেই ওই দুইজনের আর কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। এদিন ভোর রাতে কাজীপুর গ্রামের ভারতীয় সীমান্ত মেইন পিলার ১৪৫ এর সাব পিলারের

৬ এস এর পাশে ওই দুই ভাইয়ের ক্ষত বিক্ষত লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহত দুই ভাইয়ের বোন জরিনা বেগম গাংনী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তভার পড়ে তৎকালীন গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামানের হাতে। ২০১২ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ১৪ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন তিনি। এ মামলায় তিন জন আসামি ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকাক্তিমূলক জবানবন্দী দেন। ১৭ জনের সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে আদালত এই মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড দেন। মামলায় রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবি ছিলেন অতিরিক্ত পিপি অ্যাড. কাজী শহীদুল হক ও আসামী পক্ষের আইনজীবি ছিলেন অ্যাড. কামরুল ইসলাম, অ্যাড. এ.কে.এম শফিকুল আলম, অ্যাড. আতাউল গনি আন্টু।

এ মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি অ্যাড. কাজী শহীদুল হক। তিনি বলেন, এটি একটি দৃষ্টান্তমূলক রায়। এ রায় নজির হয়ে থাকবে। কারণ মামলায় ১৬৪ ধারায় স্বীকারক্তিমূলক জবানবন্দীও আছে। অন্যদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবি অ্যাড. এ.কে.এম শফিকুল আলম বলেন, এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট নই। ন্যায় বিচারের জন্য উচ্চতর আদালতে আপিল করবো।
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
বন্দুকধারীদের হামলায় সাবেক বিধায়কসহ ২ ভারতীয় রাজনীতিক নিহত ‘স্যার আমার সন্তানদের জামিন দিয়েন না’, হাইকোর্টে বৃদ্ধ মায়ের আর্তনাদ সবুজের বুক চিরে শত শত অবৈধ পুকুর খনন, ক্ষোভে ফেটে পড়লেন এলাকাবাসী আবেদন খারিজ: জ্ঞানবাপী মসজিদে চলবে পূজা ‘বোরকার ভেতরে দুষ্টামি-ভণ্ডামি বেশি লুকিয়ে থাকে’ শিক্ষার্থীকে অধ্যক্ষ গাজা যুদ্ধ: ইসরাইলি দূতাবাসের সামনে শরীরে আগুন দিলেন মার্কিন সেনা চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগের কোটা স্থগিতের বিষয়ে পুনর্বিবেচনার অনুরোধ ট্রেড গ্রুপের ১০ রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠাচ্ছে সরকার ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অনেক দেশের জন্য অনুপ্রেরণা’ যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ সম্পর্কের নতুন অধ্যায় শুরু করতে আগ্রহী: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ট্রাম্পের কাছে ‘নালিশের’ সাড়ে ৪ বছর পর মুখ খুললেন প্রিয়া সাহা বিপিএলকে কেন ‘সার্কাস লিগ’ বললেন হাথুরুসিংহে আগামী চার মাসে প্রাথমিকে নিয়োগ হবে ১০ হাজার শিক্ষক ‘আমরা বিমান হামলায় মরিনি কিন্তু ক্ষুধায় মরছি’ গাজায় দুধের সরবরাহ বন্ধ, ২ মাসের শিশুর মৃত্যু রাখাইনের রাজধানীর কাছে পুলিশ স্টেশন দখল করল আরাকান আর্মি রঙ-বেরঙের লণ্ঠনে রঙিন চীন মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের দখলে সেনাবাহিনীর অস্ত্রভর্তি ৫ ট্রাক বাংলাদেশের অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির জন্য আর্থিক খাতের সংস্কার প্রয়োজন: বিশ্বব্যাংকের এমডি