মাউশিকে ২ ভাগ করার সুপারিশ ডিসিদের – U.S. Bangla News




মাউশিকে ২ ভাগ করার সুপারিশ ডিসিদের

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ১৯ জানুয়ারি, ২০২৩ | ৮:০১
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) ভেঙে দুই ভাগ করার সুপারিশ করা হয়েছে। একটি ভাগের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে ‘মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর’। শুধু মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার জন্য এই অধিদপ্তর কাজ করবে। আর অপরটির নাম হবে ‘উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর’। এটি উচ্চ মাধ্যমিক ও পরবর্তী স্তরের শিক্ষা নিয়ে কাজ করবে। আগামী ২৪ জানুয়ারি ঢাকায় তিন দিনব্যাপী জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন শুরু হচ্ছে। সম্মেলনকে সামনে রেখে ডিসিরা বিভিন্ন বিষয়ে আগাম সুপারিশ পাঠিয়েছেন। তাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত কার্যক্রমের ওপর মোট ৯টি সুপারিশ এসেছে। এছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষাবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম নিয়ে ৮টি সুপারিশ করেছেন তারা। মাউশি ইতোমধ্যে একদফা ভাঙা হয়েছে। সংস্থাটিতে আগে মাদ্রাসা শিক্ষার দাপ্তরিক কাজ করা হতো। ২০১৫

সালের জুনে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিএমই) নামে স্বতন্ত্র আরেকটি সংস্থা গঠন করা হয়। মূলত মাউশির কাজের বোঝা দুর্নীতি কমাতে ডিএমই গঠন করা হয়। কিন্তু মাউশির কাজের বোঝা কমলেও মাদ্রাসার শিক্ষকসহ সেবাপ্রার্থীরা দুর্নীতির গ্যাঁড়াকল থেকে মুক্তি পায়নি। বিশেষ করে ওই সংস্থায় কর্মরত কয়েক কর্মকর্তার সমন্বয়ে সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। ওই সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কিছুদিন পর কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের তৎকালীন সচিবকে বদলি করা হয়। তিন দিনব্যাপী সম্মেলন শেষ হবে ২৬ জানুয়ারি। এ সম্মেলন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অধীনে হয়ে থাকে। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন। এমনকি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব সোলেমান খানের

বক্তব্যও পাওয়া যায়নি। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, তারা ডিসিদের পাঠানো সুপারিশ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে গত ১৬ জানুয়ারি পেয়েছেন। সেগুলোর ওপর সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও সংস্থা থেকে মতামত নেওয়ার কাজ চলছে। এদিকে মাউশিকে দুই ভাগ করার প্রস্তাব প্রসঙ্গে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির সভাপতি অধ্যাপক শাহেদুল খবির চৌধুরী বলেন, প্রয়োজনে যে কোনো সংস্কারই হতে পারে। শিক্ষার ক্ষেত্রে তেমন প্রয়োজন দেখবে শিক্ষা বিভাগ বা মন্ত্রণালয়। কিন্তু তারা (ডিসি) যে সুপারিশ বা প্রস্তাব করেছেন তা তাদের এখতিয়ারবহির্ভূত ও দুরভিসন্ধিমূলক। এটা মূলত শিক্ষা বিভাগ দখলেরই পূর্বপ্রস্তুতিমূলক তৎপরতা। কেননা এর আগে তারা কারিগরি ও মাদ্রাসার কাজ আলাদা করে

দুটি বিভাগ করে দখল করে নিয়েছেন। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরও তারা দখল করে নিয়েছেন। এ ধরনের প্রস্তাব গ্রহণযোগ্য নয়। শিক্ষা ক্যাডারের ১৫ হাজার কর্মকর্তা এটা রুখে দাঁড়াবে বলে মনে করেন। জানা গেছে, মাদারীপুরের ডিসি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুই বিভাগ থেকে জারি করা সব পত্র ও পরিপত্রের একটি অনুলিপি ডিসি এবং ইউএনওদের দেওয়ার সুপারিশ করেন। ঝিনাইদহের ডিসির সুপারিশ হচ্ছে, বেসরকারি এমপিওভুক্ত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষক ও কর্মচারীদের জন্য আচরণবিধি তৈরি করা যেতে পারে। এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি উল্লেখ করেন, তারা সরাসরি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকছেন। এছাড়া কেউ ঠিকাদারি, সাংবাদিকতাসহ অন্য পেশায়ও যুক্ত আছেন। এতে সার্বিকভাবে শ্রেণি কার্যক্রমে তারা দায়সারাভাবে অংশ

নিচ্ছেন। বিধিমালায় তাদের শিক্ষকতায় থাকাকালীন রাজনৈতিক সুবিধা গ্রহণে নিরুৎসাহিত করার দিকটি রাখার সুপারিশ আছে। এতে শিক্ষার মানে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে মনে করেন তিনি। কিশোরগঞ্জের ডিসি সুপারিশপত্রে হাওড় অঞ্চলের বিদ্যালয়গুলোতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি ২৫ এপ্রিল থেকে ১২ মে পর্যন্ত কার্যকর করার প্রস্তাব করেন। বর্তমানে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৩ জুলাই থেকে ১৯ জুলাই এবং প্রাথমিকে ২৮ জুন থেকে ১৬ জুলাই পর্যন্ত আছে। কিন্তু বর্ষাকাল শুরু হওয়ায় হাওড়াঞ্চলে ২৫ এপ্রিল থেকে ১২ মে সময়ে নৌকা বা হেঁটে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্কুলে যাওয়া-আসা করতে প্রচণ্ড অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। ভোলার ডিসি নিজ খরচায় দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শহিদ মিনার নির্মাণে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা জারির সুপারিশ করেছেন। ভাষাশহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ

বৃদ্ধি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহিদ দিবস সম্পর্কে সঠিক ইতিহাস জানতে ও দেশপ্রেম তৈরির এই উদ্যোগ কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে এই ডিসি মনে করেন। ঝালকাঠির ডিসি শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের জন্য ২৪ ঘণ্টার একটি চ্যানেল খোলার প্রস্তাব পাঠিয়েছেন। জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের কর্মপরিধির সঙ্গে পদবি সামঞ্জস্য করার সুপারিশ করেছেন চুয়াডাঙ্গার ডিসি। তিনি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা আর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসাবে পদবি রূপান্তরের সুপারিশ করেন। এ ক্ষেত্রে তিনি চারটি যুক্তি তুলে ধরেন। চুয়াডাঙ্গার ডিসি পাঠ্যপুস্তকে ট্রাফিক ও সড়ক পরিবহণ আইনের ধারণা দেওয়ার সুপারিশ করেন। আর কক্সবাজারের ডিসির প্রস্তাব হচ্ছে সেখানে একটি বিশেষায়িত

মেরিন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে। সমুদ্রসম্পদ কাজে লাগানো এবং মহেশখালীকেন্দ্রিক বাস্তবায়নাধীন বিশাল প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন-পরবর্তীকালে বাংলাদেশ যে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের কেন্দ্র হবে সেক্ষেত্রে এই বিশ্ববিদ্যালয় ভূমিকা রাখবে। উল্লেখ্য, ২৪ জানুয়ারি সকালে ডিসি সম্মেলন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে বিকালে শিক্ষাসংক্রান্ত অধিবেশন বসবে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ২০২০ ও ২০২১ সালে ডিসি সম্মেলন হয়নি। গত বছরের ১৮-২০ জানুয়ারি এ সম্মেলন হয়।
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
বেনজীরের রিসোর্টের আয় যাবে সরকারি কোষাগারে যে কারণে পর্যটনকেন্দ্রের টয়লেটে ‘টাইমার’ বসাল চীন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র-গুলিসহ আরসা কমান্ডার গ্রেফতার বিএনপি গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাদ দিয়েছে কেন, জানালেন কাদের জি-৭ সম্মেলনে এআই নিয়ে কথা বলবেন পোপ ‘বিএনপির টপ টু বটম সবাই দুর্নীতিবাজ’ ‘বেঁচে থাকলে ১০ দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানাব’ ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে নতুন যে শর্ত দিলেন পুতিন মালয়েশিয়ায় রিতুর পদক জয় বিশ্বকাপে মাহমুদউল্লাহই বাংলাদেশের ‘এক্স ফ্যাক্টর’ উত্তর কোরিয়ার যাচ্ছেন পুতিন, কী বলছে বাইডেন প্রশাসন? এমপি আনার হত্যায় আওয়ামী লীগ নেতা কামালের স্বীকারোক্তি টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর নতুন প্রেস সচিবের শ্রদ্ধা ‘যেকোনো সময় সরকারের পতন হতে পারে’ শ্রমিকদের দেড় ঘণ্টার অবরোধে ‘অচল’ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক দেশবাসীর ঈদের খুশি বাড়িয়ে দিতে চান সাকিব পারমাণবিক সক্ষমতা আরও বাড়াচ্ছে ইরান ঘোষণার অপেক্ষায় যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ৪ বছর ধরে আটকা পেনশন, বিনা চিকিৎসায় শিক্ষকের স্ত্রীর মৃত্যু ‘গ্লোবাল কোয়ালিশন ফর সোশ্যাল জাস্টিসে’ যোগ দিল বাংলাদেশ