বিগত ১১ বছর যাবৎ কারাগারে সাজা ভোগ করছেন তিনি। কারাগারে থেকেই দেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অবিস্মরণীয় সাফল্য লাভ করায় তাকে দেওয়া হয়েছে চাটার্ড অ্যাকাউনট্যান্ট হওয়ার বৃত্তি। পাকিস্তানের করাচিতে এই ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, নাইম শাহ নামে এক যুবক হত্যা মামলায় দীর্ঘ ১১ বছর সাজা খাটছেন। কিন্তু কারাগারে থেকে পড়ালেখা করে তিনি ১০ লাখ রুপির শিক্ষাবৃত্তি পেয়েছেন। পাকিস্তানের চাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট ইনস্টিটিউট (আইসিএপি) তাকে ২০২১ সালের উচ্চ মাধ্যমিকে অসাধারণ অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ এই বৃত্তি দিয়েছে। একজন পুলিশ কর্মকর্তা গণমাধ্যমে বলেন, কারাগারে নাইম শাহ পড়ালেখা শুরু করে। সেখানে থেকেই সে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নেয়। উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো ফলাফলে সে শীর্ষ ২০ এর মধ্যে অবস্থান করছে। এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশের পর নাইম আইসিএপি বরাবর চাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট হতে বৃত্তির জন্য আবেদন করে। আইসিএপি জবাব দেয়, তোমার শিক্ষাগত কৃতিত্বের ওপর ভিত্তি করে তুমি সিএ ট্যালেন্ট বৃত্তি লাভ করেছ। কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাসান শেহতু বলেন, কারাগারে থাকাকালীন নাইম শাহ ভালো ব্যবহার প্রদর্শন করেছে। অন্য কয়েদিদের সঙ্গে কথা বলার পরিবর্তে সে পড়ালেখা করেছে। কারা কর্তৃপক্ষ তাকে সম্ভাব্য সকল সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছে।

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৪ জানুয়ারি ২০২২, ৫:৫৬ অপরাহ্ণ
বিগত ১১ বছর যাবৎ কারাগারে সাজা ভোগ করছেন তিনি। কারাগারে থেকেই দেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অবিস্মরণীয় সাফল্য লাভ করায় তাকে দেওয়া হয়েছে চাটার্ড অ্যাকাউনট্যান্ট হওয়ার বৃত্তি।  পাকিস্তানের করাচিতে এই ঘটনা ঘটেছে।    স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, নাইম শাহ নামে এক যুবক হত্যা মামলায় দীর্ঘ ১১ বছর সাজা খাটছেন। কিন্তু কারাগারে থেকে পড়ালেখা করে তিনি ১০ লাখ রুপির শিক্ষাবৃত্তি পেয়েছেন।  পাকিস্তানের চাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট ইনস্টিটিউট (আইসিএপি) তাকে ২০২১ সালের উচ্চ মাধ্যমিকে অসাধারণ অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ এই বৃত্তি দিয়েছে।   একজন পুলিশ কর্মকর্তা গণমাধ্যমে বলেন, কারাগারে নাইম শাহ পড়ালেখা শুরু করে। সেখানে থেকেই সে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নেয়। উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো ফলাফলে সে শীর্ষ ২০ এর মধ্যে অবস্থান করছে।   এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশের পর নাইম আইসিএপি বরাবর চাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট হতে বৃত্তির জন্য আবেদন করে। আইসিএপি জবাব দেয়, তোমার শিক্ষাগত কৃতিত্বের ওপর ভিত্তি করে তুমি সিএ ট্যালেন্ট বৃত্তি লাভ করেছ।  কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাসান শেহতু বলেন, কারাগারে থাকাকালীন নাইম শাহ ভালো ব্যবহার প্রদর্শন করেছে। অন্য কয়েদিদের সঙ্গে কথা বলার পরিবর্তে সে পড়ালেখা করেছে। কারা কর্তৃপক্ষ তাকে সম্ভাব্য সকল সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছে।

বিগত ১১ বছর যাবৎ কারাগারে সাজা ভোগ করছেন তিনি। কারাগারে থেকেই দেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অবিস্মরণীয় সাফল্য লাভ করায় তাকে দেওয়া হয়েছে চাটার্ড অ্যাকাউনট্যান্ট হওয়ার বৃত্তি।

পাকিস্তানের করাচিতে এই ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, নাইম শাহ নামে এক যুবক হত্যা মামলায় দীর্ঘ ১১ বছর সাজা খাটছেন। কিন্তু কারাগারে থেকে পড়ালেখা করে তিনি ১০ লাখ রুপির শিক্ষাবৃত্তি পেয়েছেন।

পাকিস্তানের চাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট ইনস্টিটিউট (আইসিএপি) তাকে ২০২১ সালের উচ্চ মাধ্যমিকে অসাধারণ অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ এই বৃত্তি দিয়েছে।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা গণমাধ্যমে বলেন, কারাগারে নাইম শাহ পড়ালেখা শুরু করে। সেখানে থেকেই সে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নেয়। উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো ফলাফলে সে শীর্ষ ২০ এর মধ্যে অবস্থান করছে।

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশের পর নাইম আইসিএপি বরাবর চাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট হতে বৃত্তির জন্য আবেদন করে। আইসিএপি জবাব দেয়, তোমার শিক্ষাগত কৃতিত্বের ওপর ভিত্তি করে তুমি সিএ ট্যালেন্ট বৃত্তি লাভ করেছ।

কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাসান শেহতু বলেন, কারাগারে থাকাকালীন নাইম শাহ ভালো ব্যবহার প্রদর্শন করেছে। অন্য কয়েদিদের সঙ্গে কথা বলার পরিবর্তে সে পড়ালেখা করেছে। কারা কর্তৃপক্ষ তাকে সম্ভাব্য সকল সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।










আরও পড়ুন