বাংলাদেশের মুখোমুখি আজ নেপাল

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৩ নভেম্বর ২০২০, ১২:২৪ অপরাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 42 বার
বাংলাদেশের মুখোমুখি আজ নেপাল

বাংলাদেশ ও নেপাল দুই প্রতিপক্ষই দক্ষিণ এশিয়ার। বাংলাদেশ বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সমুদ্র সৈকতের দেশ। নেপাল পৃথিবীর সবচেয়ে বড় পর্বতমালার দেশ। কার্তিকের অপরাহ্ণে আজ শুক্রবার ছুটিরদিন ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল ৫টায় দেশ দুটি ফিফা আন্তর্জাতিক ম্যাচের প্রথমটিতে পরস্পরের মুখোমুখি হবে। এই আসরের নামকরণ করা হয়েছে ‘মুজিববর্ষ ফিফা আন্তর্জাতিক ফুটবল সিরিজ’। মুখোমুখি লড়াইয়ের পরিসংখ্যানে নেপাল কিছুটা এগিয়ে থাকলেও সার্বিকভাবে পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। অতীতের ২০ ম্যাচের ১৩টিতে জিতেছে লাল-সবুজবাহিনী। পক্ষান্তরে মাত্র ৫টিতে জিতেছে হিমালয়ের দেশ। ড্র হয়েছে বাকি দুই ম্যাচে।

বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলছে প্রায় ১০ মাস পর। সর্বশেষ তারা আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিল এ বছরের ২৩ জানুয়ারি ঢাকায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের সেমিতে বুরুন্ডির বিরুদ্ধে। নেপালেরও একই অবস্থা। তারা সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিল ২০১৯ সালের ১৯ নবেম্বর কাঠমান্ডুতে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে কুয়েতের বিরুদ্ধে। নেপালের বিপক্ষে এই ম্যাচকে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের কাতার ম্যাচের (আগামী ৪ ডিসেম্বর) প্রস্তুতি হিসেবে কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ। করোনার কারণে স্থবির ক্রীড়াঙ্গন। অনাকাক্সিক্ষত বিরতি কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরছে দুই দেশের ফুটবল। অতিথি দলটিকে নিয়ে বাড়তি সতর্ক স্বাগতিক বাংলাদেশ। তবে নেপালের বিপক্ষে জয় নিয়েই ভাবছে বাংলাদেশ।

করোনায় আক্রান্ত ৭ ফুটবলারকে রেখে বাংলাদেশে এসেছে দলটা। সর্বশেষ ঢাকায় আরও একজন ফুটবলার কোভিড আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে। অন্যদিকে বাংলাদেশ দলে রয়েছে ইনজুরির সমস্যা। নেই অভিজ্ঞ মামুনুল ইসলাম এবং তারিক কাজী। ম্যাচের আগেরদিন সাংবাদিকদের বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া জানিয়েছেন তার দল বেশ ভাল করেই অনুশীলন সেরেছে। দীর্ঘদিন পর আমরা আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে যাচ্ছি। আমরা সবাই শেষ তিন সপ্তাহ কঠোর পরিশ্রম করেছি। তবু সবাই শতভাগ ফিট নই। তারপরও আশা করছি আমরা জিতব।’

সর্বশেষ দুই দেখায় বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় পেয়েছিল নেপাল। দুই বছর আগে ঘরের মাঠেও নেপালের বিপক্ষে হেরেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। তাই তারকা মিডফিল্ডার-অধিনায়ক জামাল ম্যাচ দুটিতে জয় পেতে আশাবাদী। জামাল বলেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আট মাস পর ম্যাচে ফিরছি। অবশ্যই একজন খেলোয়াড় হিসেবে জিততে চাই। আজকের ম্যাচে আমাদের লক্ষ্য হলো জয়ে ফেরা। নেপালের সঙ্গে শেষ ম্যাচগুলো হেরেছিলাম তা ভুলিনি। আমার মাথায় একটা প্রতিশোধের বিষয় তো আছেই। তাই ব্যক্তিগতভাবে ম্যাচ জিততে চাই। দুঃসহ স্মৃতি ভুলে জিততে মরিয়া বাংলাদেশ। অন্যদিকে করোনায় জর্জরিত নেপালও সব সমস্যা পেছনে ফেলে জয় পেতে আশাবাদী। ২০১৮ সালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে নেপালের বিপক্ষে ম্যাচটা এখনও দুঃসহ স্মৃতি হয়ে আছে বাংলাদেশের জন্য। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ২-০ গোলের হেরে শেষ হয় বাংলাদেশের সাফের মিশন। দুই বছর পর আবারও সেই একই ভেন্যুতে দেখা হচ্ছে বাংলাদেশ ও নেপালের। তিন সপ্তাহ ধরে টানা অনুশীলনে মরিচা ধরা ফিটনেসের ঘাটতি অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছে জামাল ভুঁইয়ারা। প্রতিপক্ষকে কাবু করার জন্য তাদের দুর্বলতা পুঁজি করে নয় নিজেদের চেষ্টাতেই জয়ের লক্ষ্য জামাল ভুঁইয়ার।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।