নিয়মিত ব্যবহারকারীর সঠিক সংখ্যা নিয়ে ‘সন্দিহান’ ফেসবুক

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২৩ অক্টোবর ২০২১, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ
নিয়মিত ব্যবহারকারীর সঠিক সংখ্যা নিয়ে ‘সন্দিহান’ ফেসবুক

নিজস্ব প্ল্যাটফর্মে নিয়মিত ব্যবহারকারীর সংখ্যা নির্ধারণের প্রশ্নে সন্দিহান ফেসবুক। ব্যবহারকারীদের অনেকেই প্ল্যাটফর্মটিতে একাধিক অ্যাকাউন্ট তৈরি করায় আদতে নিয়মিত ব্যবহারকারীদের সঠিক সংখ্যা কতো, সেটি নির্ধারণ করতে পারছে না শীর্ষ সামাজিক মাধ্যমটি।

ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ নথিপত্র বিশ্লেষণ করে মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, ব্যবহারকারীদের সঠিক সংখ্যা নির্ধারণে বেশ জটিলতায় পড়তে হচ্ছে ফেসবুককে। ব্যবহারকারীদের অনেকেরই একাধিক অ্যাকাউন্ট থাকায়, এদের মধ্যে কোন অ্যাকাউন্টগুলোকে নিয়মিত ব্যবহারকারী হিসেবে গণনা করা হবে বা কতো জনকে নিয়মিত ব্যবহারকারী হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে, সেই প্রশ্নে বিভ্রান্ত প্রতিষ্ঠানটি নিজেই।

মার্কিন সামাজিক মাধ্যমটির অভ্যন্তরীণ নথি থেকে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, প্ল্যাটফর্মটিতে নতুন যে অ্যাকাউন্ট খোলা হচ্ছে তার মধ্যে পুরনো ব্যবহারকারীদের নতুন অ্যাকাউন্ট খোলার ঘটনা “বেশ লক্ষণীয়”। পাঁচ হাজার নতুন সাইন-আপ বিশ্লেষণ করে ফেইসবুক আবিষ্কার করে– এর মধ্যে ৩২ থেকে ৫৬ শতাংশ অ্যাকাউন্ট মালিকের আগে থেকেই ভিন্ন ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট আছে।

ফেসবুকের নিজস্ব অনুসন্ধানেই উঠে এসেছে নিয়মিত ব্যবহারকারীদের সঠিক সংখ্যা নিয়ে আরও চমকপ্রদ তথ্য। মে মাসে ফেইসবুকের অভ্যন্তরীণ এক মেমোতে দেখা গেছে– বয়স ২০-এর ঘরে কিন্তু মাসে একবার হলেও ফেইসবুকে ঢোকেন এমন ব্যবহারকারীদের সংখ্যা অনেক সময়েই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওই বয়সসীমার নাগরিকদের মোট সংখ্যার থেকে বেশি। অর্থাৎ, ফেইসবুকে দৈনিক ব্যবহারকারী সংখ্যাটি “নির্ভরযোগ্য” নয় বলা হয়েছে ওই মেমোতেই।

প্রযুক্তিবিষয়ক সিনেট জানিয়েছে, ফেসবুকের নিয়মিত ব্যবহারহারীদের সঠিক সংখ্যা নিয়ে তথ্য প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায়, এবার প্রশ্ন উঠেছে ফেসবুকের পক্ষ থেকে বিজ্ঞাপনদাতাদের যে তথ্য দেওয়া হচ্ছে তার নির্ভরযোগ্যতা নিয়ে।

এই প্রসঙ্গে এক ফেসবুক মুখপাত্র সিনেট কে বলেন, “আমরা যে নকল অ্যাকাউন্ট নিয়ে গবেষণা করি, সেটা তো নতুন কিছু নয়। আর এই অল্প একটু তথ্য পুরো গল্প বলছে না। জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা নথিতে আমরা নকল অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে যে তথ্য দেই, তার কোনোটাই ওই প্রতিবেদন বদলাতে পারবে না। আমাদের বিজ্ঞাপনভিত্তিক পণ্যের ক্ষেত্রেও আমরা প্রয়োজনীয় তথ্য দেই। দিন শেষে বিজ্ঞাপনদাতারা ফেইসবুককে ব্যবহার করেন কারণ তারা ফলাফল দেখেন। আমরা তাদের ব্যবসায়িক লক্ষ্য অর্জনে সহযোগিতা করি এবং রিপোর্টিং টুলের মাধ্যমে যথাযথ মান বজায় রাখি।”

ফেসবুক নিজেদের দাবি করে “রিয়াল আইডেন্টিটি প্ল্যাটফর্ম” হিসেবে, তাই একাধিক ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট পেলে ওই ব্যবহারকারীকে নিষিদ্ধ করে প্রতিষ্ঠানটি। তবে, বেশিরভাগ ব্যবহারকারী নিজের অ্যাকাউন্টে সাইন-ইন করার সময় ভুলের কারণে অথবা নিজস্ব অ্যাকাউন্ট থেকে ‘লক্ড আউট’ হওয়ার কারণে একাধিক অ্যাকাউন্ট খুলছেন– ফেইসবুক মেমোগুলোর বিশ্লেষণ থেকে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এমন ইঙ্গিতই পেয়েছে বলে জানিয়েছে সিনেট।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

আরও পড়ুন