নগরকান্দার ১২ যুবকের খোঁজ মিলছে না – U.S. Bangla News




নগরকান্দার ১২ যুবকের খোঁজ মিলছে না

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ১৫ মার্চ, ২০২৩ | ৭:৩৪
লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার পথে নৌকাডুবির ঘটনার পর ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার ১২ যুবকের খোঁজ মিলছে না। এতে নিখোঁজ যুবকদের পরিবারের সদস্যরা উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন পার করছেন। তাঁরা বেঁচে আছে কিনা সেটা জানার আকুতি জানিয়েছেন অনেকে। লিবিয়া থেকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের নিয়ে রওনা হওয়া নৌকাটি গত রোববার বৈরী আবহাওয়ায় ভূমধ্যসাগরে ডুবে যায়। দুর্ঘটনার পর সেখান থেকে ১৭ বাংলাদেশিকে উদ্ধার করা হয়। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ৩০ জন। নিখোঁজ যুবকরা হলেন– উপজেলার কোদালিয়া শহীদনগর ইউনিয়নের আটকাহনিয়া গ্রামের তোরাপ মোল্যার ছেলে শফিকুল ইসলাম রাসেল (৩০), ডাঙ্গী ইউনিয়নের কৃষ্ণনগর গ্রামের মোস্তফা মাতুব্বরের ছেলে আল আমিন মাতুব্বর (২০), সোবাহান মোল্যার ছেলে মাহফুজ মোল্যা (২২),

এসকেন মোল্যার ছেলে নাজমুল মোল্যা (২৩) ও সেকেন ব্যাপারীর ছেলে আকরাম ব্যাপারী (২৭), বাশাগাড়ী গ্রামের ইছাহাক ফকিরের ছেলে স্বপন ফকির (২৭), শংকরপাশা গ্রামের সেকেন কাজীর ছেলে শামীম কাজী (২১), সরোয়ার মাতুব্বরের ছেলে বিপুল (২৫), মালেক শেখের ছেলে বিটুল শেখ (২৫), শ্রীঙ্গাল গ্রামের সলেমান শেখের ছেলে মিরান শেখ (২২), ইদ্রিস শেখের ছেলে তুহিন শেখ (২০) ও নারুয়াহাটি গ্রামের কাশেম তালুকদারের ছেলে শাওন তালুকদার (২২)। তাঁরা সবাই স্থানীয় একটি দালাল চক্রের মাধ্যমে অবৈধভাবে ইতালি যাচ্ছিলেন। নিখোঁজ রাসেলের বাবা তোরাপ মোল্যা জানান, ছেলেকে ইতালি পাঠাতে উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামের মুরাদ ফকিরের সঙ্গে ৮ লাখ টাকায় চুক্তি করেছিলেন। গত ৮ জানুয়ারি ঢাকা থেকে বিমানে দেশ

ছাড়েন রাসেল। দুবাই হয়ে ১২ জানুয়ারি লিবিয়া পৌঁছান তিনি। দুই মাস লিবিয়ায় থাকার পর রোববার সাগরপথে ইতালি যেতে নৌকায় উঠেছিলেন তিনি। ডাঙ্গী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী আবুল কালাম জানান, মুরাদ একজন মানব পাচারকারী। তিনি অবৈধভাবে বিদেশে লোক পাঠিয়ে কয়েক কোটি টাকা আয় করেছেন। এ চক্রের হোতা মুরাদ ফকির পলাতক থাকায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর সহযোগী বাশাগারী গ্রামের ইমারত মিয়া দাবি করেন, তিনি মানব পাচারের সঙ্গে জড়িত নন। তবে তিনি দু-একজনের টাকা মুরাদকে দিয়েছেন। নগরকান্দা থানার ওসি মিরাজ হোসেন বলেন, এসব বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঈনুল হক বলেন, কেউ

যদি অভিযোগ করে তাহলে দালালদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
ফায়ার সেফটির বালাই নেই নামিদামি রেস্টুরেন্টে রাবির ভর্তি পরীক্ষা, আবাসন-চিকিৎসাসহ নানা পদক্ষেপ ভয়াবহ দাবানল টেক্সাসে বিশ্বের ১০০ কোটিরও বেশি মানুষ স্থূলতায় আক্রান্ত কংগ্রেসে ইসরাইলের ‘আত্মরক্ষা বিল’ চান বাইডেন! ইরানে ভোটগ্রহণ, শেষে এগিয়ে রক্ষণশীলরা টেলিটকের এমডিসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা মালয়েশিয়ায় বসছে আন্তর্জাতিক মুসলিম নারী সম্মেলনের আসর মালয়েশিয়া থেকে অবৈধ প্রবাসীদের দেশে ফেরার সুযোগ পল্লবীতে ইন্টারনেট অফিসে ককটেল বিস্ফোরণ, ১ জন আটক মিঠে কড়া সংলাপ বাজার ঠিক করাই এখন প্রথম দায়িত্ব ৬ বছরের প্রেম, বাংলাদেশি রিয়াজের সঙ্গে মালয়েশিয়ান তরুণীর বিয়ে একাই দাফন করেছেন ১৭ হাজার লাশ! সাড়ে ৩ কোটি টাকা হাতানোর অভিযোগ নিয়ে সিএমপিতে তোলপাড় অগ্নিকুণ্ডের ওপর ঢাকার মানুষ স্বাধীন দেশের বার্তা নিয়ে উড়ল মানচিত্র খচিত পতাকা আরও ৩-৪ বার বাড়বে বিদ্যুতের দাম অবহেলায় অন্তহীন খেসারত ১৩ দিনে আগে বিদায়, তবুও তারা নিলেন বিপিএলের সেরার পুরস্কার পশ্চিমবঙ্গে প্রথম নির্বাচনি প্রচারে যা বললেন মোদি