নগদ ডলার আসছে কম, যাচ্ছে বেশি

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৩ আগস্ট ২০২২, ১০:০৮ পূর্বাহ্ণ
নগদ ডলার আসছে কম, যাচ্ছে বেশি

দেশে মার্কিন ডলার যতটা আসছে, যাচ্ছে এর তুলনায় বেশি। তাই বিদেশে যাওয়ার সময় নগদ ডলার বহনে নিরুৎসাহিত করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। চিকিৎসা, শিক্ষা, ভ্রমণ থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রেই ডলারের বহিঃপ্রবাহ বা দেশ থেকে চলে যাওয়া বেড়ে গেছে। নানা সীমাবদ্ধতার কারণে সমপরিমাণ ডলার দেশে আসছে না। এ কারণেই খোলাবাজারে ডলারের দাম হুহু করে বাড়ছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপচারিতায় বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বাজারে ডলার সংকট ও বৈদেশিক মুদ্রার মজুত কমার অন্যতম কারণ হলো আমদানি বৃদ্ধি। আমদানির তুলনায় বাংলাদেশের রপ্তানি অনেক কম। তাই আমদানি ও রপ্তানির মধ্যে শূন্যস্থান পূরণ করতে হলে রপ্তানি বাড়ানোর বিকল্প নেই। বাজার স্বাভাবিক রাখতে নিয়মিত রিজার্ভ থেকে ডলার সরবরাহ করে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এটা অব্যাহত থাকবে। তবে রেমিট্যান্স বৃদ্ধির দিকেও নজর দিতে হবে।

এদিকে গতকালও খোলাবাজারে ডলারের সংকট ছিল। প্রতি ডলার আগের দিনের মতো ১১৯ টাকা দরে কেনাবেচা হয়েছে। ব্যাংক ও মানি চেঞ্জারগুলোতে ক্রেতারা চাহিদা অনুযায়ী নগদ ডলার পাননি। নগদ ডলারের পাশাপাশি আমদানি ঋণপত্র খোলার ক্ষেত্রেও ডলার সংকট ব্যাপক বেড়েছে। এলসি খুলতে ১১২ টাকা পর্যন্ত দর উঠেছে। এরকম দরের পরও বড় এলসি ফেরত দিচ্ছে অনেক ব্যাংক। অবশ্য বাজার সামলাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডলার বিক্রি অব্যাহত রয়েছে। কারসাজি ঠেকাতে অব্যাহত রাখা হয়েছে পরিদর্শন কার্যক্রমও। তবে কোনো কিছুতেই যেন বাগে আসছে না বাজার।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, চলতি আগস্ট মাসেও রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়ছে। চলতি মাসের প্রথম ১০ দিনে দেশে ব্যাংকিং চ্যানেলে ৮১ কোটি ৩০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় যা ২০ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি। গত বছরের আগস্টের প্রথম ১০ দিনে রেমিট্যান্স এসেছিল ৬৭ কোটি ৫০ লাখ ডলার। চলতি অর্থবছরের ৪০ দিনে মোট ২৯১ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এলো।

রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়লেও বাংলাদেশ ব্যাংক বাজারে ডলার সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে। গতকালও ১২ কোটি ২০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বিপিসির তেল, এলএনজি ও সার আমদানি বাবদ এসব ডলার বিক্রি করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এ নিয়ে চলতি অর্থবছরের ৪০ দিনে বাংলাদেশ ব্যাংক ১৭২ কোটি ৫০ লাখ ৪০ হাজার ডলার বিক্রি করেছে। গতকাল দিন শেষে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার মজুত দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৯৫৯ কোটি ডলারে।

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।