ধূলোয় মিশে গেছে স্বপ্ন, বেঁচে থাকাটাই বড় চ্যালেঞ্জ – U.S. Bangla News




ধূলোয় মিশে গেছে স্বপ্ন, বেঁচে থাকাটাই বড় চ্যালেঞ্জ

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৬:৫৭
ইসরাইল-হামাস সংঘাত শুরু হয় ৭ অক্টোবর। এর পর থেকে সাধারণ জীবনযাপনের আর সুযোগ নেই গাজাবাসীর। সেইসঙ্গে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে গেছে অনেক শিক্ষার্থীসহ হাজারও ফিলিস্তিনির স্বপ্ন আর আকাঙ্খা। গাজায় ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর সহিংসতা শুরুর পর থেকে যেসব শিক্ষার্থীর স্বপ্ন ধূলোয় মিশে গেছে, তাদেরই একজন ফিলিস্তিনের মেডিকেলের শিক্ষার্থী আসিল আবু হাদাফ। ছোটবেলা থেকে স্বপ্ন ছিল একজন চিকিৎসক হওয়ার, ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়ানোর। কিন্তু ইসরাইলি বর্বরতায় এখন ঠাঁই হয়েছে রাফার তাঁবুতে। যেখানে বেঁচে থাকাটাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। ‘যুদ্ধ শুরু হওয়ার আগে আমরা অনেক শান্তিপূর্ণভাবে বাড়িতে বসবাস করতাম। দিনের বেশির ভাগ সময় পড়াশোনা করে কাটাতাম। কিন্তু এখন আমার বেশির ভাগ সময় কাঁটে রুটি বানানো, কাপড়

কাচা ও তাঁবু পরিষ্কার রাখাতে।’—আসিল আবু হাদাফের কণ্ঠে এই হতাশাই উঠে আসে। এখন যেন সবটাই অতীত, সব কিছুই ধূসর মনে হয় হাদাফের। তবে হার মানার পাত্র নয় হাদাফ। ফিলিস্তিনের মেডিকেলের শিক্ষার্থীর কণ্ঠে দৃঢ়তা, ‘যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর এই গণহত্যা আর দুর্দশা দেখে আমার চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন আরও দৃঢ় হয়েছে। আমি এখন যে কোনো মূল্যে ডাক্তার হয়ে ফিলিস্তিনিদের সেবা করতে চাই।’ গাজার দক্ষিণাঞ্চলের আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন আসিল হাদাফ, যা এখন শুধুই ধ্বংস্তূপ। মেনে নেওয়া তার জন্য খুবই কষ্টের। গাজার খান ইউনিস শহরে চার ভাই-বোন ও বাকি সদস্যদের সঙ্গে থাকতেন হাদাফ। তবে গাজায় যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর তারা সেখান থেকে পালিয়ে

যেতে বাধ্য হয়েছেন। যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে গাজার প্রায় ৩০ লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়ে পড়েছে। বেশির ভাগই হারিয়েছেন তাদের বাড়িঘর। তারা এখন ভুগছে তীব্র খাবার, পানি ও প্রয়োজনীয় ওষুধের সংকটে। সূত্র: রয়টার্স
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
তীব্র তাপপ্রবাহ, আরও ৭ দিন স্কুল বন্ধের দাবি চেন্নাইয়ের নির্বিষ বোলিংয়ে বিশাল জয় লখনৌর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ভোট বর্জনে লিফলেট বিতরণ করবে বিএনপি নানা ‘যুক্তি-অজুহাত’ মাঠ ছাড়তে নারাজ এমপি-মন্ত্রীর স্বজনরা পাহাড়ের বুক চিরে অর্ধশত ইটভাটা সুফল নেই সাড়ে তিনশ কোটির ইবিএ প্রকল্পে বিজেপি ২০০ আসনও পাবে না, সমীক্ষা ভুয়া: মমতা কারাগারে কেজরিওয়ালের ‘মিষ্টি খাবার’ নিয়ে প্রশ্ন ইডির, হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ পার্টির ভারতে লোকসভা নির্বাচনে প্রথম ধাপে ভোট পড়েছে ৬০ শতাংশ বিপর্যস্ত ব্যাংক খাত, ঝুঁকির মাত্রা আরও বেড়েছে ওমরাহ থেকে ফেরার সময় নির্ধারণ করে দিল সৌদি আরব সিন্ডিকেটের ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখছে সরকার: কৃষিমন্ত্রী কারণ ছাড়াই বেড়েছে বেশিরভাগ ভোগ্যপণ্যের দাম ইসরাইল-ইরানের দ্বন্দ্বের শুরু কবে থেকে? পরস্পরকে নিয়ে ভুল হিসাব-নিকাশ করেছে ইরান ও ইসরাইল ফ্রান্সে ইরানের কনস্যুলেটে আতঙ্ক, আটক এক ইরানের অস্ত্র সুবিধার কেন্দ্র ইসফাহান পার্কে ডেকে সাবেক প্রেমিকাকে খুন, মুহূর্তেই হত্যার ‘বদলা’ নিলেন মা ‘বজ্রমেঘ’ তৈরি হলেই বৃষ্টির সম্ভাবনা শেখ হাসিনার মতো নেতৃত্ব বর্তমান বিশ্বে বিরল: পররাষ্ট্রমন্ত্রী