টেক্সাসে দুর্যোগ ঘোষণা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ৩:১৪ অপরাহ্ণ
টেক্সাসে দুর্যোগ ঘোষণা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

তুষারঝড়ে বিপর্যস্ত টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে দুর্যোগ পরিস্থিতি ঘোষণা করতে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এতে মানবিক সংকট দেখা দেওয়া ওই রাজ্যটিতে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের আরও বেশি ত্রাণ, সাহায্য ও তহবিল সরবরাহের পথ প্রশস্ত হবে।

ভয়াবহ তুষারঝড়ের কবলে পড়া টেক্সাসে বিদ্যুৎ সংযোগ আবার সচল হতে শুরু করেছে। তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও এখনো রাজ্যটির এক কোটি ৩০ লাখ মানুষ নিরাপদ ও খাবার পানির সংকটে ভুগছেন। এমন পরিস্থিতিতে টেক্সাসে দুর্যোগ ঘোষণা করছেন বাইডেন।

তার উপস্থিতিতে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে যখন কোনো বিঘ্ন ঘটবে না ঠিক এমন সময়ে টেক্সাস সফরে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। বিবিসি জানাচ্ছে, তুষারঝড় ও ঠাণ্ডাজনিত কারণে গত কয়েকদিনে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে প্রায় ৬০ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি শুক্রবার সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন, টেক্সাস অঙ্গরাজ্য কর্তৃপক্ষ রাজ্যটিতে দুর্যোগ পরিস্থিতি ঘোষণার জন্য প্রেসিডেন্টকে যে অনুরোধ করছেন সে সম্পর্কে প্রস্তুতির জন্য বাইডেন তার প্রশাসনের লোকজনকে নির্দেশ দিয়েছেন।

হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা বিবিসিকে বলেন, বিষয়টি নিয়ে হাউস্টন, অস্টিন ও ডালাসের মতো টেক্সাসের কিছু বড় বড় শহরের মেয়রদের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন; যাতে করে তারা সরকারি সম্পদ ব্যবহার সম্পর্কে জানতে পারেন।

তুষারঝড়ে শুধু টেক্সাস নয় যুক্তরাষ্ট্রের অনেক রাজ্যে জটিল পরিস্থিতির তৈরি হয়েছে। তুষারঝড়ের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলীয় কিছু রাজ্যে নিরাপদ ও সুপেয় পানির সংকট দেখা দিয়েছে বলে দেশটির গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে।

মিসিসিপির দেড় লাখ বাসিন্দার শহর জ্যাকসনও ঝড়ের কবলে পড়েছে। পানির সরবরাহ বন্ধ হওয়ায় অসহায় হয়ে পড়েছে শহরটির বাসিন্দারা। একইসঙ্গে সর্ববৃহৎ কাউন্টি টেনেসির সাড়ে ছয় লাখ বাসিন্দার জীবনেও দেখা দিয়েছে একই রকম সংকট।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যটি ভয়াবহ তুষার ঝড়ের কবলে পড়েছে। চলতি সপ্তাহের শুরুতে তাপামাত্র গত ত্রিশ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন মাইনাস ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামে। এতে করে টানা কয়েকদিন ধরে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে গোটা রাজ্য।

টানা চারদিন বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকার পর বুধবার থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ সচল হতে শুরু করলেও শুক্রবার পর্যন্ত অন্ধকারে রয়েছে আনুমানিক এক লাখ ৮০ হাজার বাড়ি। পুরো রাজ্য বরফাচ্ছাদিত হওয়ায় এখনো বিদ্যুৎবিহীন রয়েছেন রাজ্যটির ৩৩ লাখ মানুষ।

টেক্সাসের এক কোটি ৩০ লাখ বাসিন্দা— যা রাজ্যটির মোট জনসংখ্যার অর্ধেক— এখনো নিরাপদ ও সুপেয় পানি সরবরাহের জটিলতায় ভুগছেন। রাজ্যটির পানি সরবরাহ লাইনগুলো বরফে জমে যাওয়ায় মারাত্মক বিঘ্ন তৈরি হয়।

টেক্সাসের রাজধানী শহর অস্টিনে পাইপ বিস্ফোরিত হয়ে ১২০ কোটি লিটার পানি নষ্ট হয়েছে। শহরটির পানি সরবরাহ বিভাগের পরিচালক বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের এমন তথ্য জানান।

‘দুর্যোগের মধ্যে দুর্যোগের’ ব্যাপারে সতর্ক করেছেন কর্মকর্তারা। রেকর্ড ভাঙা শীত আর বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া টেক্সাসবাসীর জীবনে দেখা দিয়েছে অসহনীয় দুর্ভোগ। খাদ্য সরবরাহ ব্যবস্থায় দেখা দেওয়া সংকট দিনকে দিন তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে।

বিদ্যুৎ না থাকায় বেশিরভাগ দোকানে নষ্ট হচ্ছে খাবার-শাকসবজি। আতঙ্কিত জনতা খাবার মজুত করতে শুরু করার পর দোকানগুলো ফাঁকা হয়ে গেছে। বরাফাচ্ছাদিত সড়ক দিয়ে পর্যাপ্ত খাবার সরবরাহ আসাও হয়ে পড়েছে দুঃসাধ্য। মানুষ খুব কষ্টে দিনযাপন করছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।