জড়িতদের শনাক্তে ব্যর্থ এনবিআর – U.S. Bangla News




জড়িতদের শনাক্তে ব্যর্থ এনবিআর

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ১৯ মার্চ, ২০২৩ | ৮:২৩
কাস্টমসের অ্যাসাইকুডা সার্ভার হ্যাক করে মদ খালাসে জড়িতদের শনাক্তে ব্যর্থ হয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) তদন্ত কমিটি। ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) ছাড়া সিস্টেমে অনুপ্রবেশ অত্যন্ত টেকনিক্যাল হওয়ায় এবং এনবিআরের ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাব না থাকার কারণেই এ ব্যর্থতা। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে সাইবার সিকিউরিটিতে অভিজ্ঞ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জড়িতদের শনাক্তে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সার্ভার সুরক্ষিত রাখতে প্রতিবছর সিস্টেম অডিট করানোর সুপারিশ করেছে কমিটি। এ বিষয়ে শুল্ক গোয়েন্দার একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দিয়েছে। প্রতিবেদনের আলোকে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সেটি এনবিআরে পাঠানো হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত বছরের ২২ জুলাই চট্টগ্রাম বন্দর থেকে খালাস হওয়া একটি চালান নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে র‌্যাব আটক করে। কাভার্ডভ্যানে তল্লাশি চালিয়ে

৩৬ হাজার ৮২৬ বোতল অবৈধ মদ পাওয়া যায়। জাল কাগজপত্র বানিয়ে ইপিজেডের প্রতিষ্ঠানের নামে শিল্পের কাঁচামাল ঘোষণায় এসব মদ আমদানি করা হয়। পরবর্তীকালে চট্টগ্রাম কাস্টমস একই সিএন্ডএফের আরও ৩টি চালান কায়িক পরীক্ষা করে মদের সন্ধান পায়। সর্বমোট ৪টি চালানে একশ কোটি টাকার মদ জব্দ করা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ২৯ আগস্ট সার্ভার হ্যাকের ঘটনা তদন্তে শুল্ক গোয়েন্দাকে নির্দেশ দেয় এনবিআর। এরপর ৬ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্যরা হলেন-সিস্টেম অ্যানালিস্ট জাহিদুর রহমান, শুল্ক গোয়েন্দার যুগ্ম পরিচালক এদিপ বিল্লাহ, উপপরিচালক শাকিল খন্দকার, চট্টগ্রাম কাস্টমসের উপকমিশনার মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, চট্টগ্রাম কাস্টমসের প্রোগ্রামার শামীম-উল-ইসলাম এবং শুল্ক গোয়েন্দার রাজস্ব কর্মকর্তা ইয়াকুত জাহিদ। কার্যপরিধিতে কমিটিকে ওয়ান

টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) ছাড়া অ্যাসাইকুডা সফটওয়্যারে প্রবেশ করা যায় কিনা তা যাচাই করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। একইসঙ্গে ওটিপি ছাড়া সিস্টেমে প্রবেশ করতে পারলে অনুপ্রবেশের পদ্ধতি বা ত্রুটি শনাক্ত করতে এবং দ্বিস্তরবিশিষ্ট নিরাপত্তা থাকা সত্ত্বেও ওটিপি জেনারেট না হওয়ার কারণ উদঘাটন করতে বলা হয়। পাশাপাশি ওটিপি ছাড়া সিস্টেমে অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করা এবং দ্বিস্তরবিশিষ্ট নিরাপত্তা নিশ্চিতে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিতে বলা হয় কমিটিকে। তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওটিপি ছাড়া তদন্ত কমিটি অ্যাসাইকুডা সার্ভারে প্রবেশ করতে পারেনি। তাই সিস্টেমে অনুপ্রবেশের ত্রুটি চিহ্নিত করা যায়নি। তবে দ্বিস্তরবিশিষ্ট নিরাপত্তা থাকা সত্ত্বেও ওটিপি জেনারেট না হওয়ায় কয়েকটি কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রথমত, সিস্টেমে লগইন থাকা অবস্থায় নেটওয়ার্ক স্থানান্তর হলে ওটিপি

পাঠানো হয় না। দ্বিতীয়ত, মোবাইল নেটওয়ার্ক ওঠানামার কারণে ওটিপি ব্যবহারকারীর মোবাইলে নাও যেতে পারে। তৃতীয়ত, সিস্টেমে অস্বাভাবিক কার্যকলাপ। চতুর্থত, কর্মকর্তাদের পাসওয়ার্ড রিসেট করার সময় জোরপূর্বক পাসওয়ার্ড পরিবর্তন (ফোর্স পাসওয়ার্ড চেঞ্জ) অপশনের মাধ্যমে ওটিপি ছাড়া সিস্টেমে প্রবেশ করা যায়। যদিও সার্ভার হ্যাকে জড়িতদের শনাক্তে ব্যর্থ হয়েছে তদন্ত কমিটি। এর কারণ হিসাবে বলা হয়েছে, ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) ছাড়া সিস্টেমে অনুপ্রবেশ অত্যন্ত টেকনিক্যাল হওয়ায় এবং এনবিআরের ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাব না থাকায় সাইবার সিকিউরিটিতে অভিজ্ঞ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জড়িতদের শনাক্তে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে। এছাড়া সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা বা রাজস্ব কর্মকর্তাদের নিজস্ব কম্পিউটার ছাড়া অন্য কোনো কম্পিউটার দিয়ে সিস্টেমে লগইন করতে না পারে সেজন্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থা

নিতে। সিস্টেম সুরক্ষিত রাখতে ১১ সুপারিশ: অ্যাসাইকুডা সার্ভার সুরক্ষিত রাখতে ১১টি সুপারিশ করেছে তদন্ত কমিটি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে-শুল্কায়নের কাজে প্রতিটি কাস্টমসে কিউ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালু করা, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা ও রাজস্ব কর্মকর্তাদের ডেস্ক নিরাপদ রাখা, সিস্টেমে লগইন ও মোবাইল অপারেটর থেকে প্রেরিত ওটিপি প্রেরণের সময় সমন্বয়ে একটি এপিআই ডেভেলপ করে একটি ডেডিকেটেড টিমকে দায়িত্ব দেওয়া। এছাড়া ডেডিকেটেড সাইবার সিকিউরিটি টিম ও ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাব স্থাপন করার সুপারিশ করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, সিস্টেমে লগইনের ক্ষেত্রে ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড এবং ওটিপি ছাড়াও বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে (ফিঙ্গার প্রিন্ট) লগইন করার ব্যবস্থা চালু করা দরকার। এতে সিস্টেমে ব্যবস্থাপনা অধিক সুরক্ষিত থাকবে। অন্যদিকে ওয়েব সার্ভারে লগইনের

ক্ষেত্রে ওটিপি বা ক্যাপচা চালু করা যেতে পারে। সর্বোপরি অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেম প্রতিবছর অভিজ্ঞ প্রতিষ্ঠান দ্বারা সিস্টেম অডিট করা যেতে পারে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনবিআরের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, অ্যাসাইকুডা সিস্টেম অডিট করার জন্য একটি সরকারি সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। তারা সিস্টেমটি অডিটে অপারগতা প্রকাশ করেছে। এখন ভিন্ন চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। কর্মকর্তাদের গাফিলতি : গত জানুয়ারিতে এনবিআরে পাঠানো সরকারি একটি সংস্থার গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে মালামাল খালাসের সময় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা জাল ও অসঙ্গতিপূর্ণ দলিলাদি চিহ্নিত না করে নিষ্ক্রিয় থেকেছেন। আমদানিকৃত পণ্যের চালান অ্যাসেসমেন্ট করার জন্য সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা কামরুজ্জামান পণ্যটির অনুমোদন আছে কিনা তা যাচাই করেনি। এছাড়া

আইপি জালিয়াতি বা তাদের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড হ্যাক করার বিষয়ে পণ্য আটক হওয়ার পূর্বপর্যন্ত তারা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করেননি। সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা রাজিব উদ্দিন স্বাক্ষরসহ স্ক্যানিং পেপার রেখে যাওয়ায় জালিয়াতচক্র কৌশলে ভুয়া স্ক্যানিং রিপোর্ট দাখিল করে বন্দর থেকে মালামাল ডেলিভারি নিয়েছে। ওই কর্মকর্তা স্বাক্ষরসহ স্ক্যানিং রিপোর্ট আগেই রেখে যান, যা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। ওই গোয়েন্দা প্রতিবেদনে মূল অপরাধের সঙ্গে জড়িত জাফর আহমেদ, কাস্টমস সরকার জসিম রিয়াদ, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা কামরুজ্জামান, রাজিব উদ্দিন, রাজস্ব কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
ফায়ার সেফটির বালাই নেই নামিদামি রেস্টুরেন্টে রাবির ভর্তি পরীক্ষা, আবাসন-চিকিৎসাসহ নানা পদক্ষেপ ভয়াবহ দাবানল টেক্সাসে বিশ্বের ১০০ কোটিরও বেশি মানুষ স্থূলতায় আক্রান্ত কংগ্রেসে ইসরাইলের ‘আত্মরক্ষা বিল’ চান বাইডেন! ইরানে ভোটগ্রহণ, শেষে এগিয়ে রক্ষণশীলরা টেলিটকের এমডিসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা মালয়েশিয়ায় বসছে আন্তর্জাতিক মুসলিম নারী সম্মেলনের আসর মালয়েশিয়া থেকে অবৈধ প্রবাসীদের দেশে ফেরার সুযোগ পল্লবীতে ইন্টারনেট অফিসে ককটেল বিস্ফোরণ, ১ জন আটক মিঠে কড়া সংলাপ বাজার ঠিক করাই এখন প্রথম দায়িত্ব ৬ বছরের প্রেম, বাংলাদেশি রিয়াজের সঙ্গে মালয়েশিয়ান তরুণীর বিয়ে একাই দাফন করেছেন ১৭ হাজার লাশ! সাড়ে ৩ কোটি টাকা হাতানোর অভিযোগ নিয়ে সিএমপিতে তোলপাড় অগ্নিকুণ্ডের ওপর ঢাকার মানুষ স্বাধীন দেশের বার্তা নিয়ে উড়ল মানচিত্র খচিত পতাকা আরও ৩-৪ বার বাড়বে বিদ্যুতের দাম অবহেলায় অন্তহীন খেসারত ১৩ দিনে আগে বিদায়, তবুও তারা নিলেন বিপিএলের সেরার পুরস্কার পশ্চিমবঙ্গে প্রথম নির্বাচনি প্রচারে যা বললেন মোদি