ছোট ও মাঝারি শিল্পে কমছে বিদেশি বিনিয়োগ – U.S. Bangla News




ছোট ও মাঝারি শিল্পে কমছে বিদেশি বিনিয়োগ

ইউ এস বাংলা নিউজ ডেক্স:-
আপডেটঃ ১৩ জানুয়ারি, ২০২৩ | ৮:৩৪
বাংলাদেশে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগের (এফডিআই) মধ্যে বিকল্প অর্থায়ন বা ভেঞ্চার ক্যাপিটালের অংশ কমে যাচ্ছে। গত ১০ বছরে উৎপাদন ও বাণিজ্য দুই খাতেই এই বিনিয়োগ কমেছে। এর মধ্যে বাণিজ্য খাতে ৬২টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান সর্বনিম্নে। উৎপাদন খাতে বিনিয়োগের তালিকায় নিচের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে বাংলাদেশ। আর জিডিপির হিসাবে বাংলাদেশ নবম অবস্থানে। বুধবার রাতে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিলের (আইএমএফ) এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। ২০০০, ২০১০ ও ২০২০ সালের মধ্যে গড় তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে আইএমএফ। এতে ৬২টি দেশের তথ্য দেওয়া হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, এফডিআইয়ের একটি বড় অংশ হচ্ছে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল বা বিকল্প অর্থায়ন। বিশেষ করে ছোট ও মাঝারি

শিল্পে এ ধরনের এফডিআই বেশি হচ্ছে। অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় এ ধরনের বিনিয়োগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। একই সঙ্গে নতুন নতুন কর্মসংস্থানেও এ ধরনের পুঁজির বড় ভূমিকা রয়েছে। বিশ্বব্যাপী এ ধরনের বিনিয়োগ বাড়লেও বাংলাদেশে কমছে। ছোট ও মাঝারি শিল্পে বিনিয়োগ বাড়াতে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছে সংস্থাটি। তারা বলেছে, এ ধরনের বিনিয়োগ বেশি হলে অভ্যন্তরীণ চাহিদা যেমন বাড়বে, তেমনি অর্থনীতিও টেকসই হবে। বৈশ্বিক মন্দায় বিশ্ব যখন আক্রান্ত, অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড স্থবির, তখন আইএমএফ এই প্রতিবেদনটি প্রকাশ করল। প্রতিবেদনে বলা হয়, এফডিআইয়ের মধ্যে বাণিজ্য খাতে বিকল্প অর্থায়ন কমেছে। এ খাতে ২০০০ থেকে ২০১০ সালে বিনিয়োগ কমেছে। ২০১০ থেকে ২০২০ সালেও কমেছে বিনিয়োগ। অর্থাৎ ২০০০ সাল থেকেই

এ খাতে বিনিয়োগ কম হচ্ছে। এ খাতে বাংলাদেশের ওপর রয়েছে পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলংকা, ভারত, ভুটান, মালদ্বীপ। পাকিস্তানে ২০১০ সালের তুলনায় ২০২০ সালে বিনিয়োগ কমেছে। তবে ২০০০ সালের তুলনায় ২০১০ সালে বেড়েছিল। নেপাল, ভারত ও ভুটানে ছোট ও মাঝারি শিল্পে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে। বাংলাদেশে এসব খাতে বিনিয়োগ আকর্ষণের যথাযথ উদ্যোগ নেই। নীতিমালাও সহজ নয়। যে কারণে এসব খাতে বিদেশি বিনিয়োগ আসছে না। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, উৎপাদন খাতের বিকল্প বিনিয়োগে বাংলাদেশের অবস্থান সর্বনিম্ন দিক থেকে দ্বিতীয়। পাকিস্তান সর্বনিম্নে। এ খাতে ২০১০ সালের তুলনায় ২০২০ সালে বাংলাদেশে বিনিয়োগ বেড়েছে। এ খাতে বাংলাদেশের ওপর আছে শ্রীলংকা, ভুটান, ভারত, নেপাল, মালদ্বীপ। দুই সূচকেরই শীর্ষে অবস্থান করছে লুক্সেমবার্গ। জিডিপির

হিসাব বিকল্প অর্থায়নে বাংলাদেশের অবস্থান সর্বনিম্ন দিক থেকে নবম স্থানে। সর্বনিম্ন অবস্থানে আছে মরক্কো। তাদের বিনিয়োগ নেতিবাচক। এ সূচকে ভুটান নেপালের ওপরে রয়েছে বাংলাদেশ। সর্বনিম্ন দিক থেকে ভুটান দ্বিতীয় অবস্থানে এবং নেপাল ষষ্ঠ অবস্থানে। বাংলাদেশের ওপরে রয়েছে শ্রীলংকা, ভারত, মিয়ানমার, মালদ্বীপ। এদিকে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারে বাংলাদেশ এগোলেও শীর্ষ ৩৯ দেশের তালিকায় নেই । দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে শুধু ভারতের নাম রয়েছে।
ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নিয়েছেন বেনজীর, আলামত পেয়েছে দুদক ঢাকার পানিতে মিলল ক্যানসার সৃষ্টিকারী উপাদান স্বাভাবিক জীবনে না ফিরলে ছাড় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চীনে ১২ কোটি বছর আগের ডাইনোসরের ৪০০ পায়ের ছাপ সোয়া দুই কোটি শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস খাওয়ানো হবে শনিবার গার্মেন্ট শ্রমিকদের টিসিবির স্মার্ট কার্ড দেওয়ার সুপারিশ জেনারেল আজিজের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ পর্যালোচনা করছে দুদক যুক্তরাজ্যে ভেঙে দেওয়া হলো পার্লামেন্ট ভাষণে নয়, রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে দেশ স্বাধীন হয়েছে: গয়েশ্বর বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা চালু করছে ওমান এমপি আনার হত্যার তদন্ত নিয়ে যা বলল ভারত সরকারি চাকরির শূন্যপদে দ্রুত নিয়োগের তাগিদ এমপি আজিম হত্যা মামলা কনক্লুসিভ পর্যায়ে রয়েছে: হারুন এমপি আজিম হত্যা: কলকাতায় তদন্ত শেষে যেসব তথ্য দিলেন ডিবির হারুন আজিমের দেহ খণ্ডাংশ উদ্ধার অভিযান শেষে ঢাকায় ফিরলেন ডিবির হারুন ঘূর্ণিঝড় রেমালের তাণ্ডব হেলিকপ্টার থেকে দেখলেন প্রধানমন্ত্রী ঈদের আগে পরে ৬ দিন মহাসড়কে চলবে না ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান-লরি ঘূর্ণিঝড় রেমালে পৌনে ২ লাখ হেক্টর ফসলি জমির ক্ষতি ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে ‘লোন উলফ’ হামলার হুমকি মিশর-গাজা সীমান্ত দখলে নিয়েছে ইসরাইল