চীনের ঝেংঝু শহরে বন্যায় ১২ জনের মৃত্যু

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২১ জুলাই ২০২১, ৯:৩৪ অপরাহ্ণ
চীনের ঝেংঝু শহরে বন্যায় ১২ জনের মৃত্যু

ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে চীনের মধ্যাঞ্চলের বেশ কিছু অঞ্চল ভয়াবহ বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। ডুবে গেছে রেল স্টেশনসহ রাস্তাঘাট। বন্যার কারণে এরই মধ্যে ১০ হাজারের বেশি মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ঝেংঝু শহরের কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, বন্যায় হেনান প্রদেশের ঝেংঝু শহরে এ পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে আরও অনেকে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বেশ কয়েকটি শহর বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। প্রধান প্রধান সড়ক বন্ধ হয়ে গেছে। বিমানের ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

চীনের হেনান প্রদেশে ৯ কোটি ৪০ লাখ মানুষের বাস। ভারী বর্ষণের কারণে প্রদেশটিতে এরই মধ্যে সর্বোচ্চ মাত্রার আবহাওয়া সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এমন হঠাৎ বন্যার পেছনে বেশ কিছু কারণ কাজ করছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তবে সবচেয়ে বড় কারণ হিসেবে রয়েছে উষ্ণায়ন। বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কারণে সৃষ্ট জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণেই এমন অস্বাভাবিক আবহাওয়া দেখা দিয়েছে। অন্য বছরের তুলনায় বেশি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আর এতেই এত প্রবল বন্যার মুখে পড়েছে হেনান প্রদেশ।

ঝেংঝু শহরের ৫৬ বছর বয়সী বাসিন্দা ওয়াং গুয়েরং বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, আমি আমার জীবদ্দশায় আজকের মতো এমন ভারী বৃষ্টি দেখিনি।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভিডিওতে দেখা যায়, রাস্তাগুলো পানির নিচে ডুবে গেছে। পানিতে ধ্বংসাবশেষ ভাসছে। গাড়িগুলো পানিতে আটকে আছে।

ভারী বৃষ্টি ও ঝড়ে হেনান প্রদেশের বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাঁধটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পরে ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে। বাঁধটির ২০ মিটার জায়গাজুড়ে ফাটল দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা। এরই মধ্যে বাঁধ রক্ষায় সেখানে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। যেকোনো সময় বাঁধটি ভেঙে যেতে পারে বলে সতর্ক করেছে সেনাবাহিনী।

ঝেংঝু শহরের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে পাতাল রেলে আটকে পড়া কিছু যাত্রীকে দেখা যায়। যাদের কাঁধ পর্যন্ত পানিতে ডুবে গেছে। কিছু মানুষ তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা করছে। তবে ভিডিওটি এবারের বন্যারই কি না, সে বিষয়ে বিবিসি নিশ্চিত করতে পারেনি।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।