‘আলোচনার আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নয়’

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ৩:১৩ অপরাহ্ণ
‘আলোচনার আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার নয়’

পরমাণু চুক্তি নিয়ে তেহরানের সঙ্গে আলোচনার আগে ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার কিংবা এ সম্পর্কিত কোনও প্রকার কূটনৈতিক পদক্ষেপ নেওয়ার পরিকল্পনা নেই বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন। হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের এয়ার ফোর্স ওয়ান বিমানবন্দরের কার্যালয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জেন সাকি বলেন, ‘(পরমাণু চুক্তির বিষয়ে) আলোচনা শুরুর আগ পর্যন্ত (ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সংক্রান্ত) কোনও কূটনৈতিক পদক্ষেপ নেওয়ার পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্র সরকারের নেই।’

ইরানকে পরমাণু প্রকল্প থেকে বিরত রাখতে দেশটির সঙ্গে নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্য দেশ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, ফ্রান্স ও রাশিয়া ছাড়াও জার্মানি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২০১৫ সলে একটি পরমাণু চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিল।

কিন্তু ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘ত্রুটিপূর্ণ’, ‘একপেশে’, ‘এর কোনো ভবিষ্যৎ নেই’ ইত্যাদি অভিযোগ তুলে চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে নিয়ে যান এবং ইরানের ওপর নতুন কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন।

এরপর থেকে আক্ষরিক অর্থেই অনিশ্চয়তার সুতোয় ঝুলতে থাকে পরমাণু চুক্তি জ্যাকোপা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নির্বাচনে জয়ের পর বলেছিলেন যে তিনি চান, জ্যাকোপা আবার কার্যকর হোক। তার এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে তখনই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছিল ইরান।

কিন্তু প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেওয়ার পর বাইডেন প্রশাসন থেকে বলা হয়, ইরান চুক্তির শর্তগুলো যতদিন মেনে না চলবে ততদিন যুক্তরাষ্ট্র চুক্তিতে ফিরবে না।

ফলে, চুক্তি পুনরায় কার্যকর করতে প্রথম পদক্ষেপ কে নেবে—তা নিয়ে সৃষ্টি হয় একপ্রকার অচলাবস্থা। এর মধ্যে ইরান তার প্রতিশ্রুতি থেকে সরে এসে ইউরেনিয়ামের মজুত বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়ার পর চুক্তিটি জিইয়ে রাখতে নড়েচড়ে বসে ইইউ।

সম্প্রতি ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের ফোনালাপের পর পরমাণু চুক্তি নিয়ে তেহরানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে ওয়াশিংটন প্রস্তুত বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সংবাদমাধ্যমে এই তথ্য প্রকাশের পরপরই ফের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি সামনে আনে ইরান। শুক্রবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি আরোপিত নিষেধাজ্ঞাগুলো প্রত্যাহার করে নেয়, তাহলে ‘তাৎক্ষনিকভাবে’ চুক্তিতে ফিরে আসবে ইরান।

যুকরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমান বহর এয়ার ফোর্স ওয়ানের একটি বিমানে শুক্রবার মিশিগান গিয়েছেন জো বাইডেন। এ সময় বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন জেন সাকিসহ হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা।

বিমানবন্দরে উপস্থিত সাংবাদিকরা জাভেদ জারিফের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান স্পষ্ট করেন জেন সাকি।

সূত্র: রয়টার্স

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।